শুক্রবার, ০১ Jul ২০২২, ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন

কুসিক নির্বাচনে কে কোন প্রতীক পেলেন

কুসিক নির্বাচনে কে কোন প্রতীক পেলেন

নিউজ ডেস্ক।।
কুমিল্লাঃ সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনের মেয়র প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (২৭ মে) সকাল ১০টায় কুমিল্লা শিল্পকলা অ্যাকাডেমিতে এক অনুষ্ঠানে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরী জানান, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত পেয়েছেন নৌকা প্রতীক। তার পক্ষে প্রতীক গ্রহণ করেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আতিক উল্লাহ খোকন। স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু টেবিল ঘড়ি প্রতীক পেয়েছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার পেয়েছেন ঘোড়া প্রতীক। স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুল আহসান বাবুলকে হরিণ এবং ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী রাশেদুল ইসলামকে হাতপাখা প্রতীক পেয়েছেন।

নৌকার প্রার্থীর পক্ষে প্রতীক গ্রহণের পর মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আতিক উল্লাহ বলেন, ‘আমরা জুমার নামাজের পর প্রচারে নামবো। সকল ওয়ার্ড একসঙ্গে প্রচারে কাজ করবো।’

প্রতীক নেওয়ার পর মনিরুল হক সাক্কু বলেন, ‘গত দুই বারের মতো এবারও বিজয়ের হাসি হাসবো ইনশাআল্লাহ।’

ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, ‘আমি কুমিল্লা জয় করবো।’

উল্লেখ্য, বর্তমানে কুসিকের ভোটের মাঠে পাঁচ জন মেয়র প্রার্থী রয়েছেন। এছাড়া সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১০৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

গত ২৫ এপ্রিল রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে (কুসিক) ভোট গ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে তফসিল ঘোষণা করে ইসি। আগামী ১৫ জুন এই ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। একই তফসিলে ছয়টি পৌরসভা ও ১৩৫টি ইউনিয়ন পরিষদেও ভোট হবে।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, গত ১৯ মে মনোনয়ন পত্র যাচাই-বাছাইয়ে ৬ মেয়র প্রার্থীসহ মোট ১৫৪ জনকে বৈধ ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। তাদের মধ্যে সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ১১১ জন ও ৩৭ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর রয়েছেন। যাচাই বাছাইয়ে ১০ কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করার পর আপিলের মাধ্যমে ৬ জন কাউন্সিলর প্রার্থী তাদের মনোনয়ন ফিরে পেয়েছেন।

এর আগে গত ১৭ মে ছিল মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষদিন। ওইদিন ৮ মেয়র প্রার্থীসহ মোট ১৬৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। বাকিদের মধ্যে ১২০ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৩৮ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ছিলেন।

২০১২ সালের নির্বাচনে সাক্কুর কাছে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা প্রয়াত আফজল খান পরাজিত হন। ২০১৭ সালে তার মেয়ে আঞ্জুম সুলতানা সীমাও হারেন সাক্কুর কাছে। সীমা বর্তমানে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য।

২০১৭ সালের নির্বাচনে বিএনপি নেতা মনিরুল হক সাক্কু দ্বিতীয়বারের মতো এ সিটিতে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এ সিটিতে সে সময় মোট ভোটার ছিল ২ লাখ ৭ হাজার ৫৬৬ জন। বর্তমানে নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




raytahost-demo
© All rights reserved © 2019
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD