শনিবার, ২২ Jun ২০২৪, ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনে আইন মন্ত্রী আনিসুল হক বে-সরকারি ভাবে নির্বাচিত কসবায় ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৪ কসবায় এলজিইডি’র শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান আগরতলায় স্রোত আয়োজিত লোকসংস্কৃতি উৎসব কসবা প্রেসক্লাব সভাপতি’র উপর হামলার প্রতিবাদে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভা কসবায় চকচন্দ্রপুর হাফেজিয়া মাদ্রাসার বার্ষিক ফলাফল ঘোষণা, পুরস্কার বিতরণ ও ছবক প্রদান শ্রী অরবিন্দ কলেজের প্রথম নবীনবরণ অনুষ্ঠান আজ বছরের দীর্ঘতম রাত, আকাশে থাকবে চাঁদ বিএনপি-জামাত বিদেশীদের সাথে আঁতাত করেছে-কসবায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ১৩ দিনের জন্য ভোটের মাঠে নামছে সশস্ত্র বাহিনী
আজ সূর্যসেনের ৮৭তম ফাঁসী দিবস

আজ সূর্যসেনের ৮৭তম ফাঁসী দিবস

ছবি: সংগৃহীত
নিউজ ডেস্কঃ
১৭৫৭ সালের ২৩শে জুন পলাশীর যুদ্ধ- বাংলার নবাবের করুন মৃত্যু, ভারতবর্ষে ইংরেজ শাসন প্রতিষ্ঠার পথ সূচিত হয়। এরপর প্রায় ২০০ বছরের ব্রিটিশ শাসন-শোষণে শৃঙ্খলিত বাংলা তথা সারা ভারত।

শুরুতে কিছুটা মাথা পেতে নিলেও, ধীরে ধীরে ব্রিটিশদের বিপক্ষে প্রতিবাদ শুরু করে ভারতবাসী।ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনে যারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন, তাদের মধ্যে চট্টগ্রামের মাস্টার দা সূর্যসেন অন্যতম।

সূর্যসেন কুমার ছিলেন শিক্ষক। ডাক নাম কালু হলেও, তিনি পরিচিত হয়ে উঠেন মাস্টার দা নামে।

১৯১৯ সালে পাঞ্জাবে ইংরেজদের এক হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে চট্টগ্রামের সভায় মাস্টার দা সূর্যসেনের বক্তৃতায় ব্রিটিশবিরোধী মনোভাব তীব্র হয় চট্টলাবাসীর।

১৯৩০ সালের ১৮ই এপ্রিল সূর্যসেনের নেতৃত্বে বিপ্লবীরা যোগ দেন সশস্ত্র বিদ্রোহে। পরিকল্পনা অনুযায়ী রাত দশটায় হামলা করে দুইটি অস্ত্রাগারের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেন।

বিপ্লবীরা টেলিফোন ও টেলিগ্রাফ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে সূর্যসেনের নেতৃত্বে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে অস্থায়ী বিপ্লবী সরকার ঘোষণা করে।

এরপর ২২শে এপ্রিল সংঘটিত এক যুদ্ধে ১৪ বিপ্লবী শহীদ হন।

সূর্যসেনকে ধরতে ইংরেজ সরকার পুরস্কার ঘোষণা করে। ১৯৩৩ সালের ১৬ই ফেব্রুয়ারি গ্রেপ্তার হন এই বিপ্লবী।

ওইবছরই সূর্যসেন, তারকেশ্বর দস্তিদার এবং কল্পনা দত্তের বিশেষ আদালতে বিচার হয় এবং ফাঁসির রায় হয়।

১৯৩৪ সালের ১২ই জানুয়ারি চট্টগ্রাম কারাগারে সূর্যসেন ও তারকেশ্বর দস্তিদারের ফাঁসি কার্যকর হয়। আর কল্পনা দত্ত কারাগারেই আত্মহত্যা করেন।ফাঁসি কার্যকর হয়।

ফাঁসি কার্যকরের পর তাদের মরদেহ বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দেয় ব্রিটিশ শাসকেরা।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




raytahost-demo
© All rights reserved © 2019
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD