সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ১২:১১ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনে আইন মন্ত্রী আনিসুল হক বে-সরকারি ভাবে নির্বাচিত কসবায় ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৪ কসবায় এলজিইডি’র শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান আগরতলায় স্রোত আয়োজিত লোকসংস্কৃতি উৎসব কসবা প্রেসক্লাব সভাপতি’র উপর হামলার প্রতিবাদে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভা কসবায় চকচন্দ্রপুর হাফেজিয়া মাদ্রাসার বার্ষিক ফলাফল ঘোষণা, পুরস্কার বিতরণ ও ছবক প্রদান শ্রী অরবিন্দ কলেজের প্রথম নবীনবরণ অনুষ্ঠান আজ বছরের দীর্ঘতম রাত, আকাশে থাকবে চাঁদ বিএনপি-জামাত বিদেশীদের সাথে আঁতাত করেছে-কসবায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ১৩ দিনের জন্য ভোটের মাঠে নামছে সশস্ত্র বাহিনী

রূপান্তর

মৌসুমী নন্দী
মানুষ ছবি তোলে কি শুধু স্মরণের জন্য ! কখনো অতীতের স্মরণে, কখনওবা বর্তমানকে ভবিষ্যতে রূপান্তরিত করার হিসাবে ৷ আমি মনে করি এসব কিছু নয় ৷ আত্মপোলদ্ধির সাধনায় এগিয়ে যেতে পারলে যে কোনো সময়েই আমরা নিজেদের প্রতিকৃতিকে উন্মোচন করতে পারি ৷ রাতের ছাদে খোলা আকাশের দিকে তাকালে আকাশ যেন বড়ো নিজের খুব কাছের মনে হয় ৷ রাতের অন্ধকারে দুরের নিয়ন লাইটগুলো যেন এক একটা ছৌ নাচের ছায়া মুখোশ বা বাকুলা ৷ আমি রানী ক্লিওপেট্রার মতো হাঁটছি ছাদে একা একা ৷ সারারাত আমার চোখে অপেক্ষা ৷ কতবার নিঃস্ব হতে হতে ভেবেছি ঠিক একদিন ঘুম আসবে দু চোখ ভারী করে ৷ একদিন কেউ মাথায় হাত বুলিয়ে কেউ বলে উঠবে ক্লিওপেট্রা ঘুমাও আমি আছি জেগে আছি ৷ হারিয়ে যেতে ইচ্ছা করে আবার সেই কলেজের দিনে ফিরতে ইচ্ছা করে তমুল প্রেমজাগানো দুপুরে ৷ তারপরে মনে পড়ে নদী এখন অন্যপথে বাঁক নিয়ে ঘুরিয়ে নিয়েছে তার পথ ৷ অথচ তাও কত দোষারোপ বিনিদ্র রাত জুড়ে আছে অবকাশে ৷শুধু মাঝে মাঝে ঝাঁপি থেকে বার করে আবার সযত্নে তুলি রাখি সময়ের স্মৃতিতে ৷অন্ধগলি এখনো দূরে দাঁড়িয়ে হাতছানি দেয় ৷ কত আন্তরিক মুহূর্তগুলো লুকিয়ে আছে সেখানে ,অতীতের ছিঁড়ে যাওয়া সুতোগুলো জুড়ে জুড়ে এখনো কোলাজে জড়িয়ে থাকার চেষ্টায় রত ৷ সময়ের শব্দসীমা গুণতে গুণতে আজো ছবি বাছতে বসি ৷ইদানিংকালে সব ভাষাই যেন ছোঁয়াছে রোগে আক্রান্ত ৷ জরুরী কথা বলতে গিয়েও ভাষা হারিয়ে ফেলি ৷মনখারাপের পিওন এসে বাস্তুসাপের মত বাসা বাঁধে ৷দংশনে দংশনে আহত হওয়ার যন্ত্রণাতে উপশম খোঁজে ক্লিওপেট্রা প্রেমের আবেশে ৷বস্তুত স্বীকৃতি পাক আর নাই পাক জীবনে প্রেমের প্রয়োজন খুবই ৷ এক ছেঁড়া ফাটা ডাইরীকে আঠা দিয়ে জুড়ে রাখতে পারে প্রেম ৷ আর সকলের মতো ক্লিওপেটাকেও স্পর্শ করে প্রেম ৷ প্রত্যেক বার ভুল করি ৷ বুঝি না নিজেকে ৷ ভাসিয়ে দিই অজানা স্রোতে ৷ মুক্তগদ্য র মতো ঘ্রাণ পাই শরীর জুড়ে ৷৷ স্পর্শে বিষ আছে ক্লিওপেট্রার, ছোঁয়াতে পুড়ে যায় যে ছোঁয় ৷ তাই চেষ্টা করি দূরে যাবার আপ্রাণ ৷ মনে মনে প্রার্থনা করি সে যেন আমার কাছে না আসে ৷ চমকে উঠি রহস্যময় ব্যক্তির স্পর্শে ৷খুব কষ্টবোধে এখনো নীল হই মাঝে মাঝে ৷আমার বিষ তাকে কতটা পুড়িয়েছে বোঝার চেষ্টা করি ৷সেই উদাসীন মুখটা বাতাসে ভেসে ভেসে বেড়ায় ,মায়াবী আলোয় ইতিউতি ঘুরে পৌঁছে যায় গন্তব্যে ৷ অথচ এমন ছিলো না অতীতে ৷ সকল মুখোশই একসময় নতুন বইএর পাতার মতই থাকে আন্তরিক ৷উষ্ণতার রকমফেরে অনেকসময় মৌতাত কেটে যায় ৷ছিঁড়ে যাওয়া সুতো গুলোকে বৃথা চেষ্টা করি জুড়বার ৷ তবুও চেষ্টা চালাই চায়ের কাপের শেষ চুমুকটুকুর মতো আঁকড়ে ধরতে ৷ আকুতির তীব্রতাতে বেড়েছে ঘৃণা ৷ ঘৃণাকেও আজ রাণী ক্লিওপেট্রা ভালোবাসার মতই লালন করেছে তুমুল, চূড়ান্ত প্রেমের মতো ৷ঘৃণার সবটুকুও উজাড় করে দেবার কথা ছিল কিন্তু ব্যর্থ হয়ে মনে হলো ঘৃণা নয় পুরোটাই ছিল চূড়ান্ত ভালোবাসা ৷ মনের ঘরে তালা পড়ে গেলে প্রেমের মৃত্যু হয় ৷ আজো ক্লি্ওপেট্রা ছাদে দাঁড়িয়ে থাকে ৷ তারা গুলো খসে খসে পড়ে , মেঘগুলো সরে সরে যায় -,,দুরে কোথাও দরবাড়ী কানাড়ার সুর বাজে আস্তে আস্তে ফিকে হয় অন্ধকার ভোর হতে বাকী নেই ৷৷এখনো সেই আবছায়া আলোর আকাশ আমায় স্পর্শ করলে বিদ্যুতের অনূভূতি হয় ৷ সদ্য অচেনা পূরুষের মতো ৷ দুরে নিয়ন লাইটগুলোর ছায়া মুখোশ খুলে যায় ৷

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




raytahost-demo
© All rights reserved © 2019
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD