মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১০:২৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনে আইন মন্ত্রী আনিসুল হক বে-সরকারি ভাবে নির্বাচিত কসবায় ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৪ কসবায় এলজিইডি’র শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান আগরতলায় স্রোত আয়োজিত লোকসংস্কৃতি উৎসব কসবা প্রেসক্লাব সভাপতি’র উপর হামলার প্রতিবাদে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভা কসবায় চকচন্দ্রপুর হাফেজিয়া মাদ্রাসার বার্ষিক ফলাফল ঘোষণা, পুরস্কার বিতরণ ও ছবক প্রদান শ্রী অরবিন্দ কলেজের প্রথম নবীনবরণ অনুষ্ঠান আজ বছরের দীর্ঘতম রাত, আকাশে থাকবে চাঁদ বিএনপি-জামাত বিদেশীদের সাথে আঁতাত করেছে-কসবায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ১৩ দিনের জন্য ভোটের মাঠে নামছে সশস্ত্র বাহিনী
আদি- নব্য লড়াইয়ে আগুন জ্বলল বর্ধমানে বিজেপি পার্টি অফিসে

আদি- নব্য লড়াইয়ে আগুন জ্বলল বর্ধমানে বিজেপি পার্টি অফিসে

রাজশ্রী
কলকাতা প্রতিনিধি

কয়েকদিন আগেই ভার্চুয়ালি ঝা চকচকে জেলা পার্টি অফিসের উদ্বোধন করেছিলেন জে পি নাড্ডা৷ গোষ্ঠী কোন্দলে সেই অফিসেই ভাঙচুর চালালেন দলীয় কর্মীরা৷ আদি- নব্য দ্বন্দ্বে রীতিমতো ইটবৃষ্টি চলল বিজেপি-র দুই গোষ্ঠীর কর্মীদের মধ্যে৷ আগুন লাগানো হল বেশ কয়েকটি গাড়িতে৷ যে ঘটনা ঘিরে তুমুল উত্তেজনা ছড়াল বর্ধমানে৷ দলের পুরোন এবং নতুন কর্মীদের মধ্যে এই বিবাদের জেরে রীতিমতো অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির৷ বিজেপি নেতাদের অবশ্য অভিযোগ, বিজেপি-র পতাকা হাতে নিয়ে তৃণমূল কর্মীরাই এই হামলা চালিয়েছে৷

ঘটনার সূত্রপাত এ দিন সকাল থেকে৷ বর্ধমান জেলার পুরোন বিজেপি কর্মীদের একাংশের অভিযোগ, দলে তাঁদের গুরুত্ব দিন দিন কমছে৷ এর বিরুদ্ধে দলে বর্ধমান অফিসের সামনে বিক্ষোভের প্রস্তুতিও চলছিল৷ এ দিন বেশ কিছু বিজেপি কর্মী গাড়ি, বাইক করে সকাল থেকেই বিজেপি পার্টি অফিসের সামনে জড়ো হতে থাকেন৷ কিছুক্ষণের মধ্যেই পার্টি অফিস লক্ষ্য করে শুরু হয় ইটবৃষ্টি৷ ভিতরেও ঢুকেও আসবাবপত্র ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ৷ পাল্টা দলীয় কার্যালয়ের ছাদ থেকেও বড় বড় ইটের টুকরো ছোড়া হতে থাকে হামলাকারীদের লক্ষ্য করে৷

এর পরই বিক্ষুব্ধ কর্মীরা যে গাড়িতে করে এসেছিলেন সেগুলিতে আগুন ধরিয়ে দেয় দলের অন্য গোষ্ঠী৷ বেশ কিছু বাইকও ভাঙচুর করা হয়৷ বিরাট পুলিশবাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷ ঘটনার খবর পেয়ে বিজেপি রাজ্য নেতৃত্বও ঘটনাস্থলে পৌঁছয়৷ বিজেপি-র জেলা নেতাদের অভিযোগ, বর্ধমানে বিজেপি-র জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকায় তৃণমূলই চক্রান্ত করে বিজেপি-র পতাকা নিয়ে এই হামলা চালিয়েছে৷

বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেন, ‘বিজেপি-তে আদি- নব্য বলে কিছু নেই৷ সবাই বিজেপি কর্মী৷ আমরা গোটা ঘটনার তদন্ত করে দেখছি৷ তবে দলে কোনওরকমের বিশৃঙ্খলা বরদাস্ত করা হবে না৷’ তৃণমূল নেতা এবং রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ অবশ্য এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের যুক্ত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷ তাঁর দাবি, ‘তৃণমূল এই ধরনের রাজনীতি করে না, আমাদের দলনেত্রীও এসব পছন্দ করেন না৷ ওরা নিজেদের মধ্যেই মারামারি করে মরছে৷ এরকম আরও হবে৷ মুখ বাঁচাতে এখন তৃণমূলকে জড়াচ্ছে৷’

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




raytahost-demo
© All rights reserved © 2019
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD