মঙ্গলবার, ১৮ Jun ২০২৪, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনে আইন মন্ত্রী আনিসুল হক বে-সরকারি ভাবে নির্বাচিত কসবায় ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৪ কসবায় এলজিইডি’র শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান আগরতলায় স্রোত আয়োজিত লোকসংস্কৃতি উৎসব কসবা প্রেসক্লাব সভাপতি’র উপর হামলার প্রতিবাদে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সভা কসবায় চকচন্দ্রপুর হাফেজিয়া মাদ্রাসার বার্ষিক ফলাফল ঘোষণা, পুরস্কার বিতরণ ও ছবক প্রদান শ্রী অরবিন্দ কলেজের প্রথম নবীনবরণ অনুষ্ঠান আজ বছরের দীর্ঘতম রাত, আকাশে থাকবে চাঁদ বিএনপি-জামাত বিদেশীদের সাথে আঁতাত করেছে-কসবায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ১৩ দিনের জন্য ভোটের মাঠে নামছে সশস্ত্র বাহিনী
ভাঙ্গা ঘরে অতিকষ্টে থাকেন পঞ্চগড়ে অসহায় বৃদ্ধ আসিরউদ্দীন

ভাঙ্গা ঘরে অতিকষ্টে থাকেন পঞ্চগড়ে অসহায় বৃদ্ধ আসিরউদ্দীন

মামুনুর রশীদ, পঞ্চগড় প্রতিনিধি:
কনকনে শীতে বাশ আর প্লাস্টিকের বেড়ার ভঙ্গা ঘরে অসুস্থ্য স্ত্রীকে নিয়ে অতি কষ্ঠে জীবন পার করছেন বাংলাবান্ধার প্রতিবন্ধি বৃদ্ধ আশিরউদ্দীন।

একটি পা খাটো হওয়ায় এবং বয়সের ভাড়ে কোন কাজ করতে করতে না পারায় অতি কষ্ঠে লাঠিতে ভর করে কোনরকম চলাফেরা করেন তিনি। জাতীয় পরিচয় পত্রে দেয়া জন্ম তারিখ অনুযায়ী বয়স ৯০ বছর হলেও নিজ মুখে ১০৫ বছরের কথা বললেন তিনি।

স্ত্রী জুলেখা বেগম(৬২) কোমরের সমস্যায় ভুগছেন দীর্ঘদিন। বিয়ের পর স্বামীকে নিয়ে বাবার ভিটাতে বাড়ি করে বসবাস শুরু করেন জুলেখা-আশিরউদ্দীন দম্পতি। এরি মাঝে কোন ছেলে সন্তান জন্ম না নিলেও এক কণ্যা সন্তানের জন্ম হয়। আর সেই মেয়ে সাবালিকা হয়ে উঠলে স্থানীদের সহযোগীতায় বিয়ে দেন।

এদিকে প্রায় ৫০ বছর ধরে বাবার ভিটে বাড়িতে জুলেখা কোন মতে স্বামীকে নিয়ে দিন অতিবাহীত করলেও বয়সের ভাড়ে থমকে গেছে তাদের জীবন যাপন। কর্ম না থাকায় বিপাকে পড়ে ক্ষুধা নিবারণে এককেজি দুধ বিক্রিতে জীবন যাপন করছেন এই জুলেখা আসির দম্পত্তি।

অপরদিকে জুলেখা নিজে শারীরিক অসুস্থ্য হলেও শতবর্ষী এক’পা অচল প্রতিবন্ধী স্বামীকে নিয়ে জীবন যুদ্ধে মানবেতর জীবন যাপন করেন। জুলেখা আসির দম্পত্তির অভিযোগ একাধীকবার স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করেও সরকারীভাবে থাকার জন্য একটি ঘর বরাদ্দ তো দূরে থাক ১০টাকা কেজির সরকারি চালও পাননা তারা।

জানা গেছে, প্রায় ১৮ বছর আগে ব্রাক নামে একটি এনজি থেকে একটি গরু সহায়তায় পায় তারা। গরুটি বড় করে সেই গরুর দুধ বিক্রি করে দিন অতিবাহীত করছেন। কখনো ১ পোয়া, কখনো হাফ কেজি আবার কখনো ১ কেজি দুধ পান গরুটি থেকে। এদিকে গরুর দুধ না হলে পালিত মুরগির কয়েকটি ডিম বিক্রি করে কোনমতে রাতের খাবার জোগার করেন তারা। তবে মাঝে মেয়ে জামাই কিছুটা সহায়তা করলেও তা পর্যাপ্ত নয় বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

সরেজমিন পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা ইউনিয়নের দিঘলগাও (শিপাইপাড়া) গ্রামে ওই দম্পত্তির বাড়ি ঘুরে দেখা গেছে, বাঁশের বেড়া দিয়ে তৈরি টিনের চালার ঘরে বসবাস করছেন তারা। ঘরের বিভিন্ন দিক ফুটো, একদিক দিয়ে কোন মতে পলিথিন দিয়ে ফুটো বন্ধ করে রাত যাপন করছেন। এমনকি বাড়িতে নেই তেমন সেনিটাইজ ব্যবস্থা। কাপড় ও ছেড়া পলিথিন দিয়ে ঢাকা লেট্রিন ব্যাবহার করছেন পরিবারটি। অপরদিকে বিদ্যুৎ সংযোগ নিতে না পারায় কুপি বাতি দিয়ে রাতের অন্ধকার দূর করেন।

জুলেখা বেগম বলেন, বিয়ে করে বাবার ভিটার এক পাশে স্বামীকে নিয়ে বসবাস করে আসছি। বর্তমানে স্বামী বয়সের ভাড়ে পুরোই অচল। কোন কাজ কর্ম করতে পারে না। আমি নিজেই শারীরিক ভাবে অসুস্থ্য থাকায় তেমন কোন কাজ করতে পারছি না। ছেলে সন্তান না থাকায় একটি মাত্র মেয়েকে বিয়ে দিয়ে আমরা দুজনে বাবার ভিটাই আছি। একটি ঘরের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়রম্যান ও মেম্বারের সাথে একাধিক বার যোগাযোগ করেছি, কিন্তু কোন খবর নেয়নি তারা। একসময় মুড়ি বিক্রি করলেও বর্তমানে চোখে তেমন দেখতে না পাওয়ায় মুড়ি ভাজা বন্ধ করে দিয়েছি। এখন গরুর দুধ বিক্রি করে দিন অতিবাহিত করছি। মুজিববর্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন ভাবে গরিবদের সহায়তা করছে, যদি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেষ বয়সে আমাদের সরকারি ভাবে একটি ঘর দিয়ে সহায়তা করে তা হলে জীবনের শেষ সময়টুকু আমরা শান্তিতে ঘুমাতে পারবো।

শতবর্ষী প্রতিবন্ধী বৃদ্ধ আসির উদ্দীন জানান, সুস্থ্য জীবনে পাথর উত্তোলনসহ দিনমজুর এবং মানুষের জমিতে কৃষি কাজ করে জীবন অতিবাহীত করেছি। বর্তমানে শারীরিক ভাবে অসুস্থ্য ও বয়সের ভাড়ে কিছুই করতে পারছি না। যে টুকু করার আমার স্ত্রী (জুলেখা) করে থাকেন। মাঝে মধ্যে বাড়িতে আমার স্ত্রীর সাথে গরুর দুধ নিতে সহায়তা করি। এদিকে থাকার ঘরটিও তেমন ভালো না হওয়ায় যদি সরকারি ভাবে সহায়তা করা হয় তবে শেষ বয়সে একটু শান্তিতে থেকে মরতে পারবো।

এ বিষয়ে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সোহাগ চন্দ্র সাহার কাছে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি সরকারীভাবে আশিউর উদ্দীনকে ঘর নির্মান করে দেওয়ার কথা জানান।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




raytahost-demo
© All rights reserved © 2019
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD